বলির বিরুদ্ধে গেলে পশু অধিকার সংরক্ষণ, কুরবাণীর বিরুদ্ধে গেলে ‘মুসলিম বিরোধীতা!

এটা খুব আশ্চর্য যে পশুপ্রেমী ও পশু অধিকার সংগঠনগুলিকে কখনই ঈ দুল আ জহার পশু কুর বাণীর বিরুদ্ধে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা করতে দেখা যায় না! অথচ ‘Animal Welfare Network Nepal’ ও ‘Humane Society International India’ নামের নেপাল ও ভারতের দুটি পশু অধিকার সংগঠন মিলে নেপালের গাধিমাই মন্দিরে হওয়া পশু বলি বন্ধ করতে দীর্ঘ বছর ধরে আন্দোলন করে সফল হয়েছিলো। মন্দির কর্তৃপক্ষ বলি বন্ধ করে দেয়। অপরদিকে ভারতের সরকারী সংস্থা Animal Welfare Board of India (AWBI) আদালতের মাধ্যমে পশুদের মর্যাদা ও স্বাভাবিক মৃত্যুর অধিকার যে মানুষের মতই মৌলিক সেটি আদায় করেছিলো। সংগঠনটির মামলায় হারিয়ানা আদালত রায়ে বলেন, মানুষের মত অন্য প্রাণীরাও স্বাধীনতার মৌলিক অধিকারের অধিকারী। ভারতের সংবিধানের ২১ অনুচ্ছেদে অন্তর্ভুক্ত অর্থাৎ জীবনযাপনের অধিকার, ব্যক্তিগত স্বাধীনতা এবং মর্যাদার সাথে মরার অধিকার। মজার বিষয় হচ্ছে এই রায়ে ভারতের মন্দিরগুলিতে বলি ও মুস লিমদের প্রধান উত্সব কুর বাণী কার্যত নিষিদ্ধ হয়ে যায়। কিন্তু মন্দিরগুলিতে বলি যেমন চলছে, তেমন করে মুস লিমরা আত্মত্যাগের নামে গরু মহিষ ভেড়া ছাগল জবাই করে মাংস উত্সবে মেতে উঠে। কেমন হবে যদি মুস লিমদের কুর বানীর বিরুদ্ধে কোন সংস্থা নিষেধাজ্ঞা জারি করে? হিউম্যান সোসাইটি ইন্ডিয়া তাদের পরিচালক আলোকপর্ণা সেনগুপ্তা গাধিমাই মন্দিরের পুরোহিতকে সরাসরি চ্যালেঞ্জ করেছিলেন বলির বিরুদ্ধে। কিন্তু মুস লিমদের কুর বানীর বিরুদ্ধে সেরকম কোন চ্যালেঞ্জ কেউ করলে কি ঘটবে?

 

হিউম্যান সোসাইটি ইন্ডিয়া কুর বানীর বিরুদ্ধে কখনো দাঁড়িয়েছিলো কিনা আমার জানা নেই। তবে এ বছর Animal Welfare Board of India (AWBI) জম্মু ও কাশ্মীরে পশু কুর বানী না করতে নির্দেশ চেয়েছে। এই নির্দেশ বাস্তবায়ন হলে জম্মু কাশ্মীরে কুর বানী হতে পারবে না। কিন্তু গণমাধ্যমের খবর হচ্ছে Animal Welfare Board of India (AWBI) বিরুদ্ধে ‘মুস লিম বিরোধীতা’ খুঁজে পেয়েছে জম্মু-কাশ্মীর বিশ্লেষকরা! তারা বলছে এর ফলে সেখানে উত্তেজনা বাড়বে। এর মধ্যে জম্মু কাশ্মীরের ইস লামিক সংগঠন “মুত্তাহিদা মজলিস-এ-ওলামা” হুমকি দিয়েছে এসব নিয়ে যদি কেউ এগোয় তাহলে ফল ভালো হবে না। ভারতের লিবারাল ও বামপন্থিরা নিশ্চিত AWBIকে বিজেপি আরএসএসের হয়ে কাজ করা কোন দালাল সংগঠন বলবে। অলরেডি স্থানীয়রা পশু হত্যার বিরুদ্ধে এরকম নির্দেশকে ‘মুস লিম বিরোধীতা’ বলছে!

 

বাংলাদেশে নেপাল ভারতের মত কোন সংগঠনের কথা জানা যায় না। অন্তত ইন্টারনেটে আন্তর্জাতিক পশুপ্রেমি ও অধিকার সংগঠনের যে তালিকা সেখানে কোন বাংলাদেশী সংগঠনের নাম নেই। বিস্ময়কর হচ্ছে পাকিস্তানে এ ধরণের সংগঠন আছে ‘Pakistan Animal Welfare Society PAWS’। এই সংগঠনটি পাকিস্তানে কাজ করতে রীতিমত বাঁধার সম্মুখিন হচ্ছে কারণ পাকিস্তানে পশুদের প্রতি মানবিক হওয়ার মত কোন আইন নেই। তারা কুর বানীর বিরুদ্ধে কথা বললে নির্ঘাত ব্লাস ফেমি খাবে। তবু তারা বেশ কৌশলে এগুচ্ছে। তারা বলছে গৃহপালিত পশু পাখির প্রতি সদয় হোন, তাদের খাদ্য ও বাসস্থানটি যেন স্বাস্থকর রাখা হয়… ইত্যাদি।

 

ইউরোপে পশুপ্রেমি সংগঠনগুলি মাংস খাওয়া উপর যেভাবে প্লেকার্ড ধরে, নানা রকম এ্যানিমেশন তৈরি করে মানুষকে তাদের উত্সবে পশুদের মাংস খেতে যেভাবে নিরুত্সাহিত করে সেরকম করে মুস লিমদের ইদুল আজ হায় সময় সেরকম প্রচারণা দেখা যায় না। গাধিমাই মন্দিরে দুই লাখ পশু একদিনে বলি হত। অথচ ২০১৬ সালেই শুধু সৌদি আরবে হজ  করতে গিয়ে হা জি সাহেবরা ২০ লাখ পশুকে হত্যা করেছেন! তাহলে গোটা বিশ্বে একদিনে কি পরিমাণ পশুকে মরতে হয়েছে উত্সবের নামে? গাধিমাই নিয়ে আন্তর্জাতিকভাবে মানবাধিকার সংগঠন থেকে শুরু করে পশুপ্রেমি সংগঠনের সরব ছিলো চোখে পড়ার মত। বিবিসি তাদের শিরোনাম করেছিলো “নেপাল গাধিমাই: ‘বিশ্বের সবচেয়ে বড় রক্তাক্ত’ উৎসব!

একবার ভাবুন তো বিবিসি বা আন্তর্জাতিক কোন মিডিয়া যদি এরকম ফিচার তৈরি করত মুস লিমদের কুর বাণী নিয়ে তখন কি পরিস্থিতি তৈরি হবে? মুস লমানদের কথা বাদ,  অমুস লিম বাম লিবারালদের কান্নাকাটিতেই তো টেকা দায় হয়ে যাবে!

[ বি:দ্র: নেপালের গাধিমাই মন্দির কর্তৃপক্ষ ও বিজেপির আইটি সেলের কাছ থেকে যৌথভাবে মাত্র ৫০ ডলারের বিনিময়ে এই লেখাটি লিখে দিয়েছি কেবলমাত্র কোম্পানির প্রচারের আশায়!]

 

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on email

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ফেসবুক পেজ

সাবস্ক্রাইব করুন

শেয়ার করুন

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on whatsapp
WhatsApp
Share on email
Email
Share on google
Google+
Share on linkedin
LinkedIn
Share on pinterest
Pinterest
Share on reddit
Reddit
Share on tumblr
Tumblr
Share on telegram
Telegram
Share on pocket
Pocket
Share on skype
Skype
Share on xing
XING
Share on stumbleupon
StumbleUpon
Share on mix
Mix